বর্তমান সময়ঃ-April 7, 2020

নতুনদের জন্য ফাইভার গাইডলাইন ২০২০ A to Z

ফাইভারের কমপ্লিট সমাধান দেয়ার চেষ্টা করলাম। যারা ফাইভারে একদম নতুন, কিছুদিন হল একাউন্ট করছেন কিন্তু গিগ তৈরি করতে পারছেন না বা গিগ তৈরি করেছেন কিন্তু কাজ পাচ্ছেন না। তাদের জন্য ফাইভার গাইডলাইন ২০২০। আশ করি অনেক উপকৃত হবেন।

👉👉 গিগ

অ্যাকাউন্ট করার পর ভাল মত গিগ সাজাবেন, ৩টা পিক যেহেতু দিবেন, তাই সুন্দর করে পিক(গিগ ইমেজ) দিবেন, যেটা কভার পিক থাকবে সেটা জেনো সুন্দর হয়, এমন কালার ইউজ করবেন জেনো গিগে ফুটে উঠে 😊

👉👉 ডেসক্রিপশন

গিগের ডেসক্রিপশন সব সময় ইউনিক করে দেয়ার চেষ্টা করবেন, অন্যরা কিভাবে গিগ সাজাইছে সেটা আগে দেখুন, ওদের থেকে কপি করার দরকার নাই, আপনি নিজের মত করে লেখুন, তবে অন্যদের সাথে কিছু টা মিলে গেলে ও সমস্যা নাই

যেমনঃ

– 100% money-back guarantee

– 100% satisfaction

(জাস্ট আইডিয়া দিলাম আপনার ইচ্ছে মত দিবেন)

এই গুলা প্রায় সবার ই এক হয়ে যায়, সো প্রব্লেম নাই, কিন্তু বাকি ডেসক্রিপশন গুলা নিজের মত করে ইউনিক করে লিখেন

👉👉 গিগ টাইটেল

গিগ টাইটেল ইউনিক রাখার চেষ্টা করবেন, বেশি বড় টাইটেল না রেখে সর্ট টাইটেল রাখবেন

👉👉 কি-ওয়ার্ডস

যেহেতু ৫টা কি-ওয়ার্ডস আপনি দিতে পারবেন, সো আপনি যেই রিলেটেড কাজ করেন সেগুলার সাথে সামঞ্জস্য রেখে কি-ওয়ার্ডস গুলা দেন

অনেকদিন হলো গিগের মদ্ধে একটা পরিবর্তন এনেছে, যেটা আগে ছিল না সেটা হচ্ছে গিগ পারপাস, নিন্মে কয়েকটা ক্যাটাগরির গিগ পারপাস একত্রে দেয়া হলোঃ—-

– Promotional

– Corporate

– Music & Concerts

– Restaurant

– Bar

– Spa & Beauty

– Movies

– Media Kit

– Real Estate

– Travel

– Medical

– Academic

চেষ্টা করেন স্পেসিফিক কিছু নিয়ে কাজ করার, কারন প্রত্যেকটা ক্যাটাগরির কাজ আছে

এক্সাম্পলঃ  যাদের স্পা রিলেটেড কাজ দরকার তারা প্রথমে স্পা flyer/brochure/poster etc etc লিখেই সার্চ করবে ( এটা আমার পার্সোনাল মতামত, আপ্নারা চাইলে আপনাদের ইচ্ছে মত করতে পারেন)

গ্রাফিক্স, ওয়েব, যে যেই রিলেটেড কাজ করেন, স্পেসিফিক কিছু করেন, সব কিছুর ই কাজ আছে

👉👉 বায়ার রিকুয়েস্ট

অ্যাকাউন্ট করলেন + গিগ করলেন কিন্তু কাজ পাচ্ছেন্না, হতাস হয়ে যাচ্ছেন, ভাই অ্যাকাউন্ট করলেই কাজ পাওয়া যায়না, আপনাকে শুরুতে বায়ার রিকুয়েস্ট সেন্ড করতে হবে (ভাগ্য ভাল হলে অনেকে কিছু দিনের মধ্যেই অনেকে পেয়ে যায়)

প্রতিদিন আপনি ১০টা রিকুয়েস্ট সেন্ড করতে পারবেন, এই ১০ টা বায়ার রিকুয়েস্ট আপনি প্রতিদিন কিছু সময়ে ভাগ ভাগ করে সেন্ড করবেন

– দুপুরে ২.৩০-৪ টার দিকে চেক করবেন

– সন্ধার পর ৬/৭ টার

– রাত ১০- ১২টার পর

এই সময়ে বায়ার রিকুয়েস্ট বেশি থাকে, বায়ার রিকুয়েস্ট বেশি দেখলে ১০ টা একবারে শেষ করবেন্ননা, কয়েকবারে ১০ টা সেন্ড করবেন (আমি যখন ফাইভারে কাজ শুরু করেছিলাম এভাবে কাজ করতাম)

👉 বায়ার রিকুয়েস্টে কি লিখবেনঃ

আমরা সবাই এক ই কভার লেটার (মানে আপনি জবে বিড করার সময় যেটা লিখেন) কপি করে মেরে দেই, কোন বড় ভাই/কেউ একটা কভার লেটার দিলো ওইটাই সেন্ড করে দেই, এইরকম কেউ করবেন্না, বায়ার কি চাইছে সেটা দেখুন, বেশি বড় ডেসক্রিপশন না লিখে শর্ট করে লেখুন, যতটুকু দরকার ততটুকু লেখেন

নোটঃ যারা নতুন অ্যাকাউন্ট + নতুন গিগ করেছেন তাদের বায়ার রিকুয়েস্ট অপশনে শুরুতে কিছুদিন বায়ার রিকুয়েস্ট একদম ই থাকেনা, অনেকে হতাস হয়ে পোস্ট দেন “বায়ার রিকুয়েস্ট নাই” , শুরুতে এমন ই হয়, কিছু দিন পরে ঠিক হয়ে যায়, সুতরাং টেনশন করবেন্না

👉👉 বায়ার

নতুনদের খুজে খুজে ইন্ডীয়ান/পাকিস্তানী বায়ার রা নক করে বেশি (যারা পুরাতন ওদের ও করে) , কারন নতুনদের দিয়ে অনেক কাজ করানো যায়, এদেশি বায়ার গুলা কাজ করিয়ে নিয়ে পরে রিফান্ড নেয়, অনেক ঝামেলার, সবাই জানেন ওরা কেমন, ওদের কাজ না করাই ভাল, কিছু হলে আপনি সাপোর্টে কথা বলার আগে ওরাই সাপোর্টে কথা বলে ফেলে, তখন আপনার কাজ ও গেলো + আপনার সময় গেলো, আবার ওয়ার্নিং ও খাবেন আপনি। মনে রাখবেন আপনার চেয়ে ফাইভার বায়ারদের মূল্য দেয় বেশি, সো অদের থেকে দূরে থাকেন

নোটঃ সবাই যে খারাপ সেটা না, আমি ও অদের কাজ করছি ভাল বায়ার পাইছি, তবে বাঁশের পরিমান বেশি ছিল, কাজ করিয়ে মানিব্যাক নেয়, মেক্সিমাম ই এমন করে

আবার, কিছু ক্লায়েন্ট বড় লম্বা মেসেজ দিবে, ওদের সাথে কাজ করার জন্য, আপনাকে ইমেইল দিবে, আপনাকে স্কাইপ দিবে, ওদের ইগ্নোর করবেন, ওরা স্পামার, আপনি এইসব মেসেজ পাওয়ায় কিছুক্ষণ পর দেখবেন ফাইভার ওদের আইডি খেয়ে দিছে

👉 অনেক ভাল বায়ার কাজ করিয়ে নেয়ার আপনার ইমেইল বা স্কাইপ চাইবে, কিন্তু আপনি ভুল করে ও দিবেন্না, ফাইভার ধরতে পারলে আপনার আইডি শেষ, যদি কোন উপায়ে আপনি দিতে পারেন তাহলে ত বেশ! তবে সাবধান, আর ক্লায়েন্ট যদি ইমেইল/স্কাইপ দিয়ে দেয় আপনি চাইলে উনাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন, তবে বলে দিয়েন আপানাদের যে ইমেইল বা স্কাইপে কথা হইছে সেটা জেনো ভবিষ্যতে ফাইভারে ম্যানসন না করে

👉👉 ব্রডব্রান্ড / আইপি / ওয়াইফাই

অনেকে পোস্ট দেন

আমি কি এক ই আইপি দিয়ে ৩-৪ টা অ্যাকাউন্ট চালাতে পারবো?

– না আপনি পারবেন্না

(অনেকে আবার বলে পারবেন, ভাই যদি আপনি অ্যাকাউন্ট করতে পারেন ২টা, তাহলে আপনি ৫০০ টাকার জন্য কেন রিস্কে যাবেন, ৫০০ টাকা হলে নতুন লাইন নেয়া যায়, মোট কথা রিস্কে না যেয়ে একটা নেট লাইন দিয়ে একটা আইডি ইউজ করেন)

অনেকে আবার বলেন, আমি কি ফাইভারের সাথে সাথে অন্য মার্কেটপ্লেসে ও এক ই আইপি দিয়ে কাজ করতে পারবো ?

= জী হা পারবেন

👉 রিয়েল আইপি না সেয়ার আইপি ইউজ করবো ?

৩-৪ এম্বির লাইন গুলা আপানাকে বা আমাকে যারা ৫০০ টাকায় যারা দিয়ে বলে এটা রিয়েল আইপি, ওরা নাম্বার ওয়ান বাটপার, রিয়েল আইপি আপনি ১ এম্বি নিতে গেলে মিনিমাম ১০০০ টাকার বেশি লাগে, কথা হচ্ছে আপনি ৫০০ টাকার ঐসব লাইন নিয়ে ও কাজ করতে পারবেন, কোন সমস্যা হবেনা ( এক্সাম্পল দেয়ার জন্য ৫০০ টাকা বললাম, এলাকা বেধে ৫০০/৬০০+ ও হয়ে থাকে)

👉 ইউজার নেইম কি চেইঞ্জ করতে পারবো ?

জী না! পারবেননা।

👉👉 পেমেন্ট মেথড

পেমেন্ট মেথড হিসেবে Payoneer আপনার লাগবে, আপনার যদি পাসপোর্ট বা NID না থাকে তাহলে আপনি আপনার বাবা, মা, ভাই, বোন বা রিলেটিভ যে আছে তার নামে Payoneer অ্যাকাউন্ট করে পেমেন্ট নিতে পারবেন , সমস্যা নাই

নোটঃ ফাইভারে অনেক আপডেট আসতেছে, সামনে হয়ত আরো আপডেট আসবে, সো সব কিছু নিজের ব্যাহার করার চেষ্টা করবেন, আপনার যদি না থাকে

রিলেটেডঃ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEO এর A to Z পর্যন্ত টিউটোরিয়াল [পর্ব-০১] :: SEO কী? কেন ব্যবহার করা হয়?

Share

One Ping

  1. Pingback: কিভাবে Affiliate Marketing শুরু করব? A to Z, 2020 - Informative Land

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *